loading...

বদলগাছী সাব-রেজিষ্টারের নেতৃত্বে জমি দখলের চেষ্টা, ফলন্ত ২৭ টি আম গাছ কর্তন

0

প্রতিনিধি বদলগাছী (নওগাঁ) ঃ
নওগাঁর বদলগাছীতে উপজেলা সাব -রেজিষ্টারের নেতৃত্বে দলিল লেখকেরা রাতের আধারে ব্যক্তি মালিকানাধীন আম বাগানের ২৭টি গাছ কর্তন করে পেট্রল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দিয়ে জমি জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।এঘটনায় আজ সোমবার আম বাগানের মালিকের ছেলে মোঃ জাহাঙ্গীর সেলিম বাদি হয়ে বদলগাছী থানায় একটি এজাহার দাখিল করেছেন। মামলার এজাহার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বদলগাছী উপজেলা সদরের কাদিরবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা মৃত. মফিজ উদ্দীন আহম্মেদের উপজেলা সদরের জিধিরপুর মৌজার টিএন্ডটি মোড় সংলগ্ন দেড় বিঘা জমি রয়েছে। প্রায় একযুগ আগে তিনি তাঁর জমিতে আম বাগান করেন।

গত রবিবার রাত এগারোটায় বদলগাছী উপজেলা সাব-রেজিষ্টারের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জন দলিল লেখক সহ তাঁদের ভাড়াটিয়া লাঠিয়াল বাহিনী লাঠিসোটা নিয়ে ওই জমিতে যান। এঘটনাটি জানার পর জমির মালিকের ছেলে জাহাঙ্গীর সেলিম তার ভাই সহ লোকজন নিয়ে সেখানে গেলে তাঁরা তাঁদেরকে লাঠিসোঁটা নিয়ে ধাওয়া করেন। প্রাণভয়ে তাঁরা জমির পাশে একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন। এসময় সাব- রেজিষ্টারের নির্দেশে দলিল লেখকেরা আম বাগানের ২৭ টি ফলন্ত আম গাছ কেটে ফেলে। এরপর তাঁরা বাগানের কাটা আম গাছগুলোতে পেট্রেল ঢেলে আগুন দেয়। তবে আম গাছগুলো আগুনে পোড়েনি। সোমবার সকালে আম বাগানে গিয়ে দেখা যায়, বাগানের আম গাছগুলোর গোড়ালী কেটে মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। বাগানের একটি জায়গায় আগুনের ছাই পড়ে আছে।

জমির মালিকের ছেলে জাহাঙ্গীর সেলিম জানান, উপজেলা জিধিরপুর মৌজার সাবেক এস,এ খতিযান নম্বর ২০৭, সাবেক দাগ নম্বর ৪৪ এর কাতে মোট ১ একর ২০ শতক জমি ১৯৭৫ সালে ৯ ডিসেম্বর ২৭২৫৫ নম্বর দলিল মুলে মৃত মশিতুল্লাহ কাজীর ওয়ারিশগনের কাছ থেকে মফিজ উদ্দিন মালিক হন। তাঁর মধ্যে ৭০ শতক জমি সরকার অধিগ্রহন করে টিএন্ডটি অফিস স্থাপন করেন। বাঁকি জমিতে মফিজ উদ্দিনের ওয়ারিশেরা আম বাগান করেন। সাথী ফসল হিসেবে সেই জমিতে ধানসহ বিভিন্ন ফসলাদী চাষাবাদ করছিলেন। উক্ত জমিটি খ তফশিল গেজেট ভূক্ত হলে আমার বাবা মফিজ উদ্দীন আহম্মেদ সম্পত্তিটি অবমুক্তি জন্য নওগাঁ সহকারী জজ আদালতে ৩৬৪/২০১৩ মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি এ্যাবেট করে দিয়ে যার যার নামীয় নামজারীর আদেশ দেন।

এরপর মফিজ উদ্দিনের বড় ছেলে একে,এম ইকবাল হোসেন নামজারীর জন্য গত ১৩/৭/২০১৫ তারিখে বদলগাছী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ে আবেদন করেন। কয়েক দফা শুনানি শেষে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তাকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। এমবস্থায় নওগাঁ জেলা প্রশাসক ড. আমিনুর রহমান জমিটি তাঁর অধিনস্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীর মাধ্যমে দখলের চেষ্টা করছিলেন। এঘটনায় মজিজ উদ্দিন চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে নওগাঁ সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত উভয় পক্ষের শুনানী শেষে স্থিতিবস্থা জারী করেন । আদালতের আদেশ অমান্য করে নওগাঁ জেলা প্রশাসক গত ৪/১২/২০১৬ তারিখে ৫২৫৫ দলিল মুলে বদলগাছী সাব-রেজিষ্টারকে দীর্ঘ মেয়াদী লিজ রেজিষ্ট্রি করে দেন।

মফিজ উদ্দিন উক্ত দলিল বাতিল চেয়ে গত ৪/১/ ২০১৭ তারিখে জেলা প্রশাসক ও সাব-রেজিষ্টারকে বিবাদী করে নওগাঁ সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলা চলমান অবস্থায় বদলগাছী কমিশনার (ভূমি) উক্ত জমিটি বদলগাছি সাব-রেজিষ্টারের অফিসের নামে নামজারী করে দেন। পরে আমি নামজারী বাতিল চেয়ে সহকারী কমিশনার ভূমি বরাবরে আবেদন করি। এঅবস্থায় রোববার রাতে সাব-রেজিষ্টারের নেতৃত্বে প্রায় ৩০-৪০ জন দলিল লেখক সহ ভাড়াটিয়া লাঠীয়াল বাহিনী আমাদের আম বাগানের গাছ কেটে জমিটি দখলের চেষ্টা করেন। রাতেই ইউএনও ও থানার ওসিকে ঘটনাটি জানালে তাঁরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ দখলকারীদের সরমঞ্জাদি জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়।বদলগাছী থানার ওসি জালাল উদ্দিন বলেন, দলিল লেখকেরা রাতের আধারে জমিটি দখল করতে গিয়েছিলেন। পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে গেলে জবর দখল চেষ্টারীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ সেখান থেকে বাঁশের খুঁটিসহ সরমঞ্জাদি জব্দ করেছে। দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিলন হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি কেটে দেন।এ বিষয়ে আজ সোমবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা সাব-রেজিষ্টার পারভেজ খাঁন বলেন, ঘটনার দিন আমি অফিস করে চলে এসেছি । তবে আজ সোমবার দলিল লেখক কতৃক ঘটনাটি জেনেছি এ বিষয়ে আমার কোন নির্দেশনা ছিলোনা।

loading...