loading...

ঐতিহ্যবাহী বিশ্বেশরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ অনুষ্ঠান উৎযাপন

0

স্টাফ রিপোর্টার:

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিশ্বেশরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূরণ হয়েছিল ২০১৬ সালে, আজ শুভ উদ্ভোধন হল দুইদিন ব্যাপী শতবর্ষপুর্তি উদযাপন।

বিশ্বেশ্বরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষপুর্তি উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক দুলালের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্ষ অধ্যাপক্ষ হারুণ অর রশিদ।

বিশেষ অথিতি হিসেবে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রক্তন ছাত্র, যুগ্ন সচিব রেজাউল করিম বাবু, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিতু মরিয়ম, পৌর মেয়র আব্দুছ ছাত্তার (কমান্ডার), প্রাক্তন ছাত্র ডাঃ মৃণাল কুমার সরকার, আইনজীবি শাহ মঞ্জুরুল হক, ঈশ্বরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম খান ও উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব আহসান হাবিব জেবিন প্রমুখ ।

সকাল ১১টার দিকে বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে উপজেলা শহর প্রদক্ষিণ শেষে বেলুন উড়িয়ে শতবর্ষ উদযাপন আনুষ্ঠানিক ভাবে দুই দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান ভিসি উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসিম উদ্দিন।

বিশেষ অথিতিদের শুভেচ্ছা বক্তব্য শেষে, প্রধান অতিথির বক্তব্যে, শিক্ষা ক্ষেত্রে দেশে বিপ্লব ঘটেছে, আজকের শিক্ষার্থীদের হাত ধরেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ক্ষুদা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ ও তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে মন্তব্য করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডক্টর হারুন অর রশিদ বলেন শিক্ষাই একটি জাতির উন্নয়নের মেরুদণ্ড। একজন মানুষ সম্পদ আহরণ করলে তা স্থায়ী হয় না। কিন্তু শিক্ষা আহরণ করলে তার প্রদীপ কখনো নিভে না। শিক্ষা জাতি ও ব্যাক্তি জীবনে অমূল্য সম্পদ হিসাবে থাকে। বাংলাদেশ শিক্ষা ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। আজকের শিক্ষিত তরুণ প্রজন্ম আগামীতে শুধু বাংলাদেশে নয় বিশ্ব দরবারে নেতৃত্ব দিয়ে দেশের সুনাম আরো মজবুত করবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডঃ হারুন অর রশিদ আরো বলেন, ঈশ্বরগঞ্জের বিশ্বেশ্বরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি ইতিহাস ঐতিহ্য আছে। এই বিদ্যালয়টি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরও আগে ১৯১৬ সালে জমিদার বজেন্দ্র কিশোর চৌধুরী বিশ্বেশ্বরী বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। এই বিদ্যালয়ের প্রয়োজনীতা গ্রহণযোগ্যতা এবং এলাকার উন্নয়নে মেধাবীদের দায়িত্বশীল ভুমিকা পালন সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছিল বলেই আজ বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। তেমনি বিশ্বেশ্বরী স্কুল হয়েছিল বলেই এ এলাকার মেধাবীরা আজ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে দায়িত্বশীল ভুমিকা পালন করছেন। এ প্রতিষ্ঠানটি সত্যিই একটি মডেল। যা শত বছর ধরে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে আসছে।

ময়মনসিংহের ঈশ্বগঞ্জ বিশ্বেশ্বরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষপুর্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে শুক্রবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যায়ের উপচার্ষ হারুণ অর রশিদ এসব কথা বলেন।

উল্লেখ্য শত বছর আগে জমিদার বজেন্দ্র কিশোর চৌধুরীর প্রতিষ্ঠিত, ঈশ্বরগঞ্জ বিশ্বেশরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের অনেকেই সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি অনেকেই জাতীয় সংসদের সদস্য হিসাবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। এ সময় তারা এলাকার সার্বিক উন্নয়নসহ বিদ্যালয়টির উন্নয়নে অগ্রনী ভুমিকা পালন করেছেন।

দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আজ শনিবার দিনব্যাপী আলোচনা, স্মৃতি রোমস্থন ও রাত ১১ টা পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে।

loading...
error: Content is protected !!