loading...

নেককার স্ত্রী , শিক্ষনীয় পোষ্ট

0

আবদুল কাদের:
স্বামী তার স্ত্রীকে বলছে, আমি আমার কাজে গেলাম তুমি ঘুমিয়ে পড় স্ত্রী পেছন থেকে স্বামীর জামা টেনে ধরলেন। তোমাকে কিছু কথা বলার ছিল, স্বামী বলল, হুম তোমার সমস্ত কথা শুনার জন্য আমি প্রস্তুত আছি।
স্ত্রী তার স্বামীকে বলল, তুমি যে ভাবেই উপার্জন করে আনোনা কেন? সেটা আমার জন্য হালাল, কিন্তু আমি চাই তুমি আমাদের জন্য পরিপূর্ণ হালাল রুজি রোজগার করবে, সবার স্ত্রী যদি ৫ লক্ষ টাকার শাড়ি চায়, তবে আমি তোমার কাছে চাইবো এতটুকু বস্ত্র, যা দিয়ে আমি আমার আব্রু ঢেকে রাখতে পারবো। কোন স্ত্রী যদি তার স্বামীর নিকট শান, শৌকত ইমারত চায়, তবে আমি তোমার নিকট চাইবো ছোট একটা কুঠির ঘর, যাহাতে কোন মতো রাত্রি যাপন করতে পারি।
কোন স্ত্রী যদি তার স্বামীর নিকট স্বর্ণ অলংকার চাই, তবে আমি চাইবোনা, আমি চাইবো আল্লাহ তোমার চরিত্র স্বর্নের মতো খাঁটি করুক, প্রতিদিন গোশ পোলাও খেতে চাইনা, দামী রেস্টুরেন্টের কোন ফাস্ট ফুডস খেতে চাইবোনা, আমি দুদিন না খেয়েও থাকতে পারবো, কিন্তু হালাল উপার্জনের একমুঠো খাবার আমাকে
দিলেই চলবে।
তোমাকে আমি গোলামের মতো নয়, বাদশার মতো মনে করি, জুতার মতো তোমার স্থান পায়ে নয়, তুমি আমার মাথার তাজ, হৃদয়ের সব ভালবাসা তোমার জন্য।
তোমার নিকট আমার একটাই চাওয়া, ফরজ কাজ গুলো কখনোই অমান্য করবেনা, নবীর সুন্নত মোতাবেক জীবন সাজাবে। স্বামী এতক্ষণে চুপ করে সব শুনছিলেন, স্ত্রীর বলা শেষ হলে বললেন, তুমি আমার কাছে রাজরানীর চাইতেও বড় কিছু, তোমার মতো স্ত্রী এ জগতে সেই পাবে, যে পরম সৌভাগ্যবান, তোমার প্রতিটি কথা, আমার জীবন চলার পথে অনেক বড় একটা অবলম্বন।

loading...
%d bloggers like this: