loading...

সুজানগরের আদর্শ কৃষক আব্দুল কাদের পেঁপে চাষে সাফল্য অর্জন

0

মাহামুদুল হাসান সজীবঃ
পাবনার সুজানগর বান্নাইপাড়া প্রামের মৃত মমিন উদ্দিন প্রামানিকের ছেলে আব্দুল কাদের প্রায় ২০ বছর ধরে পেঁপের চাষবাদ করছে। তিনি পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাই বিট্র মরিচ চাষের পাশাপাশি চারা উৎপাদন করে এলাকার বেশ সুনাম অর্জন করছে। তিনি আধা বিঘা জমি থেকে শুরু করে, বর্তমান তিনি ৪ বিঘা জমিতে শুধু পেঁপে চাষ করছে। কৃষক আব্দুল কাদের জানান বিঘা পতি ১০ হাজার টাকা খরচ করে প্রতি বিঘাতে আয় করেন ১লাখ টাকা। পেঁপের চারা উৎপাদন করে আরো আয় করেন ৫০ হাজার টাকা। এছাড়া টমেটো, হাইবিট্র মরিচ দেশীয় কলা, চারা উৎপাদন করে বছরে আয় করেন ৫০ হাজার টাকা। এলাকায় আব্দুল কাদের উৎপাদনের পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাইবিট্র মরিচের চারার ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। স্থানীয় বন বিভাগের চারার চেয়ে গুনগত মানের ও উন্নত জাতের চারা হওয়াতে উৎপাদন কৃত চার তিনি বেশী দামে বিক্রয় করেন। তিনি বলেন অনেক পূর্বে আমি একজন কিটনাশক ও সার ব্যবসায়ী ছিলেন। সেখান থেকেই বাড়ী আঙ্গিনায় পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাইবিট্র মরিচ চাষ করে নিজে খেতাম ও আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতে পাঠাতাম। তখন থেকেই শুরু করে বর্তমানে পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাইবিট্র মরিচ চাষের শুরু। এলাকায় একজন আদর্শ কৃষক নামে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। এক কথায় আব্দুল কাদেরের পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাইবিট্র মরিচ কাদের ফল নামে পরিচিত লাভ করেছে। আব্দুল কাদেরের এ সাফল্য দেখে আরো অনেকেই অনুপ্রানিত হয়ে পেঁপে, টমেটো, দেশীয় কলা ও হাইবিট্র মরিচের চাষে ঝুকছেন। এসব চাষাবাদে স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারন বিভাগ যদি সহায়তা ও ব্যাংক থেকে ঋণ প্রদান করেন। তাহলে এসব অঞ্চলে আরো চাষাবাদ বাড়বে বলে আশা করেন।

 

loading...
%d bloggers like this: