loading...

একটি শিক্ষানীয় পোষ্ট, যেমন কুকুর, তেমন মুগুর

0

একদিন হযরত মাওঃআশরাফ আলী থানভী রহ. এর নিকটজনৈক কাফের কিছু অবাস্তব প্রশ্ন নিয়ে আসল।কাফের হযরত থানভী রহ. কে বলল, হুজুর আমিআপনাকে কয়েকটি প্রশ্ন করব অনুগ্রহপূর্বক উত্তরদিলে উপকৃত হবো।প্রশ্ন : সিজদার দ্বারা উদ্দেশ্য হল ইবাদত। চাই তামসজিদে হোক বা মন্দিরে হোক। তা ইবাদতহিসেবেই বিবেচিত হবে। এতে কোনসন্দেহের অবকাশ নাই।উত্তরে থানভী রহ. বললেন, খাওয়ার দ্বারাউদ্দেশ্য হল উদর পূর্ণ করা চাই তা ভাত খাওয়ার মাধ্যমেহোক অথবা তা পায়খানা খাওয়ার দ্বারা হোক। এতেওতো কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। পুনরায় কাফের ব্যক্তিটি হযরত আশরাফ আলী থানভীরহ. কে প্রশ্ন করল, আপনারা হলেন ওলী-আল্লাহ,অথচ আপনারাই তাঁর নাফরমানী করেন, এর বাস্তবপ্রমাণ হল এই যে, আপনারা আল্লাহর সমস্ত বিধানমেনে চলেন এবং আল্লাহর নামে যবাই করা প্রাণীভক্ষণ করেন। কিন্তু আল্লাহ তাআলা যে প্রাণীকেমৃত্যু দেন ঐ প্রাণীকে আপনারা ভক্ষণ করেন না।অথচ ঐ প্রাণীকে তো আল্লাহই সৃষ্টি করেছেন,এটাইতো নাফরমানীর আলামত। কিছু সৃষ্টিকেআল্লাহর বলে মানেন আর কিছু সৃষ্টিকে অস্বীকারকরেন।উত্তরে থানভী রহ. বলেন, আল্লাহ তাআলা দুনিয়ারবুকে মানব জাতি সৃষ্টি করেছেন আর তাদের মাঝেএমন জ্ঞান দান করেছেন যার মাধ্যমে তারা পানিপানের মাধ্যম তথা টিউবয়েল তৈরি করেন, আর ঐকলের পানি আপনারা পান করেন। কিন্তু মহান রাব্বুলআলামীন অনুগ্রহে আপনার সাড়ে তিন হাত দেহেরমাঝে যে সুন্দর চমৎকার টিউবয়েল তৈরি করেছেনঐ টিউবয়েলের পানি কেন পান করেননা? অথচ এইটিউবয়েলেও তো পানি রয়েছে।হযরত আশরাফ আলী থানভী রহ. এর মুক্তাতুল্য এইবয়ান শুনে বলতে বাধ্য হল- হুজুর আপনি শেষপর্যন্ত আমাকে পায়খানা-পশ্রাব খাইয়ে ছাড়লেন।

loading...
%d bloggers like this: